Ultimate magazine theme for WordPress.

মোবাইল গেম ছেড়ে খেলার মাঠে এলেই প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদানের ঘোষণা

শেরপুর প্রতিনিধি:
শেরপুর জেলার ছেলে-মেয়েরা মোবাইল গেম ছেড়ে খেলার মাঠে এলেই খেলার প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন এর সভাপতি এবং শেরপুর জেলা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক মানিক দত্ত। শনিবার সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এই ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, “শেরপুর জেলার যে সকল ছেলে মেয়ে অঙ্গীকার করবে যে, তারা মোবাইল ফোনে গেইম না খেলে, ফুটবল, ক্রিকেট, ব্যাডমিন্টন, টেবিল টেনিস, দাবা খেলবে এবং সাঁতার শিখবে তাদের খেলার জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদান করা হবে। আর্থিক ভাবে অসমর্থদের পোষাকও প্রদান করা হবে।”

এই বিষয়ে শেরপুরের সচেতন অভিবাবক এবং সচেতন নাগরিকগণ জানান, ফুটবল এসোসিয়েশন এর সভাপতি যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন তা অব‍্যশই প্রশংসনীয়। অনেক ছেলে-মেয়েরাই মোবাইলে গেম খেলা বাদ দিয়ে মাঠের খেলায় ফিরে আসবে। এতে শিশুদের যেমন মানসিক বিকাশ ঘটবে তেমনি শারীরিক ফিটনেসও তৈরি হবে এবং করোনাকালীন সময়েও এটি একটি যোগান্তকারী উদ‍্যােগ।

এ ব‍্যাপারে ফুটবল এসোসিয়েশন এর সভাপতি মানিক দত্ত সাংবাদিকদের বলেন, করোনায় স্কুল কলেজ বন্ধ থাকার কারণে শেরপুরের অনেক ছেলে মেয়েরাই সময় কাটানোর পথ হিসেবে মোবাইলের গেইমকে বেছে নিয়েছে যা তাদের মানসিক অবক্ষয় এবং পারিবারিক অশান্তিও সৃষ্টি হচ্ছে। যদি ছেলে মেয়েরা মাঠে ফিরে আসে তাহলে তাদের মানসিক পরিবর্তন ঘটবে বলে আমি মনে করি।

যেসমস্ত ছেলে-মেয়েরা অঙ্গীকার করবে মোবাইলে গেইম খেলবে না তাদেরকে নিম্নোক্ত কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ করেন সভাপতি মানিক দত্ত। তারা হলেন- সাধন বসাক, মজিবুর রহমান, শাহরিয়ার রবীন, শিপন, সনিক, রাজিব, অজয় চক্রবর্তী জয়, লুৎফর রহমান লুলু, আব্দুল করিম, মোঃ জাকির হোসেন বাবলু হাকিম বাবুল, সৈয়দ বদরুল হক রেজভী, সৈয়দ বরিউল করিম মনি, সারোয়ার জাহান পপলিন ও আবুল হাশিম।

শেরপুর জেলা ঔষধ প্রশাসন তও্বাবধায়ক সাখাওয়াত হোসেন রাজু আকন্দ বলেন, যেসব খেলাধুলা শরীর থেকে ঘাম জড়ায় তা শিশুদের মানসিক এবং শারীরিক বিকাশে সে সব খেলাধুলা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এদিকে এই ধরণের প্রশংসনীয় উদ‍্যােগ প্রত‍্যেকটি জেলায় যেন গ্রহণ করা হয় এমনটাই বলছেন জেলার সচেতন অভিবাবকবৃন্দ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.