Date: July 03, 2022

দৈনিক দেশেরপত্র

collapse
...
Home / সারাদেশ / ঢাকা / নরসিংদীতে পূর্ব শত্রুতার জেরে সাবেক ইউপি সদস্যকে হত্যা - দৈনিক দেশেরপত্র - মানবতার কল্যাণে সত্যের প্রকাশ

নরসিংদীতে পূর্ব শত্রুতার জেরে সাবেক ইউপি সদস্যকে হত্যা

June 23, 2022 05:30:52 PM  
নরসিংদীতে পূর্ব শত্রুতার জেরে  সাবেক ইউপি সদস্যকে হত্যা

রেজাউল কারিম, নরসিংদী:
নরসিংদীতে সুজিত সূত্রধর (৫৬) নামে সাবেক এক ইউপি সদস্যাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এসময় আহত হয়েছেন তার ছেলেসহ ২ জন।

গতকাল বুধবার রাত ৮টার দিকে সদর উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের হাজীপুর কাঠ বাজারে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে এই হত্যার ঘটনা ঘটে। নিহত সুজিত সূত্রধর হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার ও হাজীপুর কাঠ বাজারের ব্যবসায়ী ছিলেন।

পুলিশ ও পরিবারের সদস্যরা জানান, প্রতিদিনের মতো হাজীপুর কাঠ বাজারে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসা ছিলেন সুজিত সূত্রধর ও তার ছেলে সুজন সূত্রধরসহ অন্যান্যরা। এসময় কয়েকজন দুর্বৃত্ত ধারালো অস্ত্র নিয়ে অতর্কিতে সুজিত সূত্রধরের ওপর হামলা চালিয়ে কোপাতে থাকে। এসময় তার ছেলে সুজন সূত্রধর ও দ্বীন ইসলাম নামে আরও একজন এগিয়ে গেলে তাদের ওপরও হামলা শেষে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুজিত সূত্রধরকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত অপর দুইজন সুজন সূত্রধর ও দ্বীন ইসলামকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

নিহত সুজিত সূত্রধরের ছেলে আহত সুজন সূত্রধর বলেন, তাদের সাথে জমিজমা নিয়ে একই এলাকার প্রভাবশালী প্রতিপক্ষের বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে বাবা সুজিত সূত্রধর বাদী হয়ে মামলা করেন। এতে প্রতিপক্ষের লোকজন আমাদের ওপর ক্ষুব্ধ ছিল। এই জেরে চিহ্নিত সন্ত্রাসী  ১৫/২০ জনের একদল সন্ত্রাসী পূর্ব পরিকল্পিতভাবে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দোকানে এসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা শেষে পালিয়ে যায়। হাসপাতালে নেয়ার পর আমার বাবা সুজিত সূত্রধরকে মৃত ঘোষণা করা হয়। হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান  মহাআলম সরকার জানান এই খুনি চক্রটি হাজীপুরে প্রায় এক ডজন খুন করেছে কিন্তু তাদের কোন বিচার হয়নি প্রকৃত খুনিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি ।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান বলেন, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সুজিত সূত্রধরের সাথে একই এলাকার কতিপয় লোকজনের পূর্ব বিরোধ ছিল। তবে পূর্ব বিরোধ নিয়ে এই হত্যার ঘটনা ঘটেছে কী না, সে বিষয়ে আমরা এই মুহুর্তে নিশ্চিত নই। ঠিক কী কারণে কে বা কারা হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে অপরাধীরা ধরা পড়বে।