Ultimate magazine theme for WordPress.

ঝিনাইগাতীতে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী রেজাউল

ঝিনাইগাতী প্রতিনিধি, শেরপুর:
শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতীতে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সামনে রেখে বইছে আগাম নির্বাচনী হাওয়া। তারই ধারাবাহিকতায় ৩ নং নলকুড়া ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী রেজাউল করিম। তিনি উপজেলার নলকুড়া ইউনিয়নের ভালুকা গ্রামের কৃতিসন্তান। তার পিতা ছিলেন দীর্ঘ প্রায় দুই যুগের সাবেক সফল ইউপি চেয়ারম্যান, এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধাদের সহায়তাকারী মরহুম সরকার খবির উদ্দীন।

জানা যায়, তার পিতা সরকার খবির উদ্দিন ১৯৭৩ সাল থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত ২ নং নলকুড়া গৌরীপুর ইউনিয়নের ৩ বার এবং ১৯৯৮ সাল থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত ৩ নং নলকুড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে অত্যন্ত দক্ষতা ও সফলতার সহিত তিনি দায়িত্ব পালন করেন এবং চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

জানা যায়, তার বড় ভাই জাকিরুল ইসলাম মিন্টু তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, রফিকুল ইসলাম ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক সদস্য ও ইমদাদুল ইসলাম ঝন্টু উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। সরকার খবির উদ্দিনের পুরো পরিবার আওয়ামী পরিবার হিসেবে ব্যাপক পরিচিত রয়েছে।

রেজাউল করিমের কর্মী-সমর্থকরা জানান, তিনি ছাত্রবস্থায় ১৯৯৫-৯৬ মেয়াদে সরকারি আশেক মাহমুদ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, জামালপুর এর পানাউল্লাহ আহম্মেদ মুসলিম হল শাখার ছাত্রলীগের প্রচার স¤পাদক ছিলেন পরবর্তীতে ১৯৯৭-৯৮ সালে শেরপুর সরকারি কলেজের ছাত্র সংসদের বায়োজিদ- লিপটন পরিষদের দলীয় ভাবে সক্রিয় কর্মী হিসেবে কাজ করেন। এছাড়াও ২০০৩ হতে ০৫ সাল পর্যন্ত ঝিনাইগাতী উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এর পর ২০০৫-২০০৬ সাল পর্যন্ত ঝিনাইগাতী উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়কের দ্বায়িত্ব পালন এবং দলের গঠনতন্ত্র অনুসারে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ছাত্রলীগের সফল সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি স¤পন্ন করেন।

আরও জানা যায়, শিক্ষাগত যোগ্যতায় বিএ (অনার্স) এমএ রেজাউল করিম ২০০৬ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত জেলা ছাত্রলীগের সদস্য পদে থেকে দলের নিরলস ভাবে তিনি দায়িত্ব পালন করেন। রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে বিএনপি সরকারেরর শেষ সময়ে ষড়যন্ত্র মূলক রাজনৈতিক মামলার শিকার হন।
রেজাউল করিমের পিতার মৃত্যুর পর ওই পরিবার থেকে নলকুড়া ইউনিয়ন থেকে এর আগে কেউ প্রাথীর্তা জানান দেননি। তবে দীর্ঘদিন পর আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তাকে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান তার সমর্থক ও ওই ইউনিয়নের বাসিন্দারা। জনসমর্থন ভোটারদের সমর্থন পেয়ে রেজাউল করিম নলকুড়া ইউপি থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী বলেও জানিয়েছেন তিনি।

রেজাউল করিম জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র ঘঠিত হয়েছে বলেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে দলের কাজ করে যাচ্ছি। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে আমাকে মনোনয়ন দিলে দলের পাশে থেকে দেশ ও জাতির কল্যানে সেবায় নিয়োজিত থেকে মাদক সন্ত্রাস জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কাজ করে যাবো। এছাড়াও নলকুড়া ইউনিয়নকে অপরাধ নির্মূল ও দুর্নীতিমুক্ত করে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন তিনি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.